বাংলাদেশ শ্রম আইন অনুসারে প্রত্যেক নারী শ্রমিক প্রসূতিকালীন সময়ে পূর্ণ বেতনে মাতৃত্বকালীন ছুটি ভোগ করতে পারবেন। কয়েকটি শর্তের ভিত্তিতে মাতৃত্বকালীন ছুটি প্রদান করা হয়ে থাকে। যা প্রযায়ক্রমে আলোচনা করা হলো:

মাতৃত্বকালীন ছুটি

একজন নারী শ্রমিক সন্তান প্রসবের পূর্বে ৮ সপ্তাহ এবং সন্তান প্রসবের পরে ৮ সপ্তাহ মোট ১৬ সপ্তাহ পূর্ণ বেতনে মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন।

তবে শর্ত থাকে যে, মাতৃত্বকালীন এসব সুবিধা পেতে একজন নারী শ্রমিককে সেই নিয়োগকর্তার অধীনে সন্তান প্রসবের আগে কমপক্ষে ৬ মাস চাকুরি করতে হবে।

দুই বা ততোধিক সন্তান জীবিত থাকলে মাতৃত্বকালীন আর্থিক সুবিধা পাওয়া যাবে না, কেবল মাতৃত্বকালীন ছুটি পাওয়া যাবে।

** ২০১১ সালের জানুয়ারি মাসে সরকার সার্ভিস রুল সংশোধন করে সরকারী নারী কর্মকর্তাদের মাতৃত্বকালীন ছুটি ৬ মাস করেছে। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক তফসিলি ব্যাংকসমূহে কর্মরত নারী কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের মাতৃত্বকালীন ছুটিও ৬ মাস নির্ধারণ করেছে। বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলো চাইলে এই বিধানটি অনুসরণ করতে পারে।

অন্তঃসত্ত্বা নারীর কর্মে শিথিলতা

কোনো নিয়োগকর্তা যদি জেনে থাকেন যে, তার অধীনস্ত কোনো নারী শ্রমিক অন্তঃসত্ত্বা এবং আগামী ১০ সপ্তাহের মধ্যে তিনি সন্তান প্রসব করতে পারেন, এমতাবস্থায় ওই শ্রমিককে তিনি এমন কোনো কষ্টকর কাজে নিয়োগ করবেন না, যার কারণে অনাগত শিশুটি মায়ের গর্ভে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। সন্তান জন্ম দেয়ার পর ১০ সপ্তাহ পর্যন্ত কাজের এই শিথিলতা চলবে।

চা বাগানে কর্মরত গর্ভবতী নারীদের ক্ষেত্রে চা বাগানের চিকিৎসক কর্তৃক পরামর্শ অনুযায়ী মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবে এবং অতিরিক্ত সময় কাজের জন্য প্রাপ্য ভাতা প্রাপ্ত হবে।

মাতৃত্বকালীন আর্থিক সুবিধা

কোন অন্তঃসত্ত্বা মহিলা কর্তৃক নিয়োগকর্তাকে নোটিশ প্রদানের অব্যবহিত পূর্ববর্তী তিন মাসে তাহার প্রাপ্ত মোট মজুরীকে তাহার প্রকৃত কাজের দিনগুলো দিয়ে ভাগ করে গড় মজুরী হার নির্ণয় করে দৈনিক, সাপ্তাহিক, মাসিক যে ক্ষেত্রে যাহা প্রযোজ্য সেইভাবে সম্পূর্ণ নগদে প্রদান করবে।

সন্তান প্রসবকালে কিংবা প্রসবের পর আট সপ্তাহের মধ্যে যদি নারী শ্রমিকটি মারা যান, সেক্ষেত্রে দেখতে হবে, তার সন্তানটি বেঁচে আছে কি না। সন্তান বেঁচে থাকলে সন্তানের অভিভাবক মাতৃত্বকালীন ভাতা পাবেন। সন্তান মারা গেলে ওই নারীর মনোনীত কেউ সেই ভাতার অধিকারী হবেন। কাউকে পূর্বে মনোনীত করা না হলে মৃত শ্রমিকের আইনগত প্রতিনিধিরা ওই ভাতা গ্রহণ করবেন।

মাতৃত্বকালীন আর্থিক সুবিধা প্রাপ্য কোন মহিলা সন্তান প্রসবের পূর্বে মারা গেলে মৃত্যুর পরবর্তী সময়ের কোন আর্থিক সুবিধা প্রাপ্ত হবেন না কিন্তু তার আগের কোন পাওনা থাকলে নিয়োগকর্তা উক্ত প্রসূতি মহিলা মনোনীত ব্যক্তিকে, বা মনোনীত ব্যক্তি না থাকলে শ্রমিকের আইনগত প্রতিনিধিরা ওই ভাতা গ্রহণ করবেন।

সন্তান প্রসবের ৬ মাস আগে বা প্রসবের ৮ সপ্তাহ পরে যথাযথ কারণ ছাড়া কোন নারী শ্রমিককে বরখাস্ত, অপসারণ বা চুক্তির অবসান ঘটালে ঐ নারী শ্রমিক তার মাতৃত্বকালীন ভাতা থেকে বঞ্চিত হবেন না।

Show CommentsClose Comments

Leave a comment